পর্ব-৫: পশ্চিম তীর (West Bank) কি এবং কোথায় আসুন জানি বিস্তারিত ! - জীবন গড়ি প্রযুক্তির সুরে ♫

Infotech Ad Top new

Infotech ad post page Top

পর্ব-৫: পশ্চিম তীর (West Bank) কি এবং কোথায় আসুন জানি বিস্তারিত !

পর্ব-৫: পশ্চিম তীর (West Bank) কি এবং কোথায় আসুন জানি বিস্তারিত !

Share This


সকলকে আমার ব্লগে স্বাগতম। আশা করি সকলে ভাল আছেন। বর্তমান পৃথিবী বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যের আরব দেশগুলো বিশ্ব মোড়ল ও তাদের ক্রীড়ানকদের দ্বারা সৃষ্ট এক অশান্ত ও অস্তিতিশীল পরিস্থিতি প্রত্যক্ষ করছে। বলা হয়ে থাকে যে, আমরা আরব বিশ্বে যে অস্থিতিশীল ও অশান্ত পরিবেশ লক্ষ্য করছি তার মূলেই রয়েছে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংকট। বিশ্ব মোড়ল আমেরিকার  একচোখা নীতি আর ক্রমাগতভাবে মুল পরিস্থিতিকে এড়িয়ে চলার  কারনেই আজ ফিলিস্তিনীরা নিজ দেশে অস্তিত্বের সংকটে পড়েছে, যেখানে তারা বহুকাল আগে থেকে বসবাস করে আসছিল। আমি আমার আজকের এই লেখনীতে সাধ্যমত চেষ্টা করেছি একটি প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে আর তা হল কীভাবে কোন পরিস্থিতিতে মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরায়েল নামক ইহুদি রাষ্ট্রটির জন্ম হল।  আশা করি আমার  এই ধারাবাহিক লেখনী আপনাদের জ্ঞান তৃঞ্ষার সামান্যতম হলেও মেটাবে। আর তা পারলেই আমি আমার শ্রমকে স্বার্থক বলে মনে করব। গঠন মুলক মন্তব্য পেলে উৎসাহিত হব।


আজকাল পত্রিকার পাতা খুললে অথবা টেলিভিশনের সুইচটা অন করলেই যে দুটি স্থানের নাম বার বার হাইলাইট হয় সে দুটি স্থানের নাম পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকা। শুধু লোহার গরাদ , ইট-কাট, কাঁটা তার ও সুরক্ষিত বেষ্টনীকেই কারাগার বললে এখন ভুল হবে পৃথিবীর মাঝে আর জীবন্ত কিছু কারাগার রয়েছে তার মাঝে একটি স্থানের নাম হল পশ্চিম তীর। পশ্চিম তীরটি(West Bank) ইসরায়েলের পূর্ব ভূখন্ডের একটি অংশ। এটা বর্তমানে 2.6 মিলিয়ন ফিলিস্তিনিদের আবাসভূমি এবং ভবিষ্যতে যদি কখনো ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠন হয় তবে এটি হবে সেই রাষ্ট্রের কেন্দ্রবিন্দু।  1967 সালে ইসরায়েল এটি দখল করে নেয় এবং সম্প্রতি এই দখলদার রাষ্ট্রটি এখানে  ইহুদিদের  বসতি স্থাপনের জন্য অনুমতি দিয়েছে কিন্তু ফিলিস্তিনিরা এটিকে তাদের নিজের ভূখণ্ড বলেই দাবি করে এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও মনে করে যে এই ভূমি ফিলিস্তিনিদের নিকট থেকে জোর করে কেড়ে নেয়া হয়েছে এবং এটি অবৈধভাবে দখলকৃত ফিলিস্তিনি জনগণের ভুমি। ইসরাইল 1967 সালে মিশর সিরিয়া এবং জর্ডানের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে। যদিও ইসরাইল প্রথমেই আক্রমণ করে বসে ছিল কিন্তু তারা এ কথা বলেছিল যে সম্ভাব্য মিশরীয় আক্রমণ ঠেকাতেই তারা এটা করেছিল ।  কিন্তু আরবরা এর সাথে দ্বিমত পোষণ করে এবং ইসরায়েলকে পশ্চিমা মদদপুষ্ট আগ্রাসী শক্তি হিসেবে অভিহিত করে। যাইহোক ৬ দিন  ধরে ইসরাইলের সঙ্গে যুদ্ধ করার পর আরব শক্তিগুলো এখানে পরাজিত হয় এবং মিশরের নিকট হতে পশ্চিম তীর  ও জর্ডানের নিকট হতে পূর্ব জেরুজালেম ইসরায়েল দখল করে নেয়। এবং সেই দখলদারিত্ব আজও বহাল আছে। লোহিত সাগরের পশ্চিম তীরে এই স্থানটি অস্থিত বলেই সম্ভবত এটিকে পশ্চিম তীর বা West Bank বলা হয়। 

ফিলিস্তিনি বসবাস কারি অঞ্চল গুলোর একটি 

অনেক ইহুদিদের নিকটই তাত্ত্বিকভাবে এই খবরটি অত্যন্ত সুখকর। কারণ  হিসেবে তারা এটা বলে থাকেন যে এই পশ্চিম তীরই তাদের প্রাচীন ইহুদী রাজ্যের কেন্দ্রবিন্দু ছিল এবং ইহুদীদের অনেক তীর্থস্থান এখানে রয়েছে যেমন হেবরনের Cave of Patriarchs । যা থেকে ইহুদিরা দীর্ঘদিন বিচ্ছিন্ন ছিল বা তাদের কাছ থেকে কেড়ে নেয়া হয়েছিল। নামকাওয়াস্তে ফিলিস্তিনিদের স্ব-শাসন কর্তৃপক্ষ থাকলেও বাস্তবে ইসরাইলিরাই পশ্চিম তীর কে নিয়ন্ত্রণ করে তার মানে হলো চারিদিকে মিলিটারি বা সেনাবাহিনী দ্বারা বেষ্টিত এই ভূমিতে প্রায় 2.6 মিলিয়ন ফিলিস্তিনি বসবাস করে যারা বর্তমানে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণেই সেখানে বসবাস করছে। প্রতিনিয়ত ভুমি দখল ছাড়াও সামান্য ছল-ছুতোতেই ইসরায়েল এখানে পানির লাইন  ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেয়। সামান্যতম প্রতিরোধ করে একটি পাথর ছুঁড়লেই তার বিনিময়ে ইসরায়েলী বিমানগুলো হামলে পড়ে নিরীহ ফিলিস্তিনীদের উপর। ভাগ্যে জোটে বিমান থেকে ছোঁড়া বোমা ও সেল। কোন শান্তি চুক্তি হলে ইসরাইল এবং পশ্চিম তীরের এই সীমান্ত বা বর্ডারকে পরিবর্তিত হতে হবে। পশ্চিম তীরে প্রায় 5 লাখ ইহুদি বসবাস করে যাদের মধ্যে অনেকেই ইসরাইলের সীমান্তঘেঁষা অঞ্চলেই বসবাস করে। দ্বি-রাষ্ট্রীয় চুক্তিতে এসকল ইহুদি বসবাসকারীদের পশ্চিম তীর ত্যাগ করতে হবে এবং কিছু অংশে হয়তো ইসরাইলি বসবাসকারীরা থেকেই যাবে। বিনিময়ে ইসরাইল কেউ হয়তো তার শাসিত অঞ্চলের কিছু অংশ ছেড়ে দিতে হবে । এটাকে ভুমি বিনিময় বা Land Swaps বলা যেতে পারে। আজ পর্যন্ত কোন ইসরায়েলী কর্তৃপক্ষ কিংবা কোন ফিলিস্তিনি নেতা কোথায় কিভাবে এই দ্বি-রাষ্ট্রীয় সীমা-রেখা টানা হবে সেই বিষয়ে একমত হতে পারেন নি। 

No comments:

Post a Comment

Infotech Post Bottom Ad New

Pages